Categories
যাপিত জীবন

তন্তান

নাওঈদ বাবা তাড়াতাড়ি ক খ সব লিখে ফেলোতো।
সে আস্তে ধীরে লিখা শুরু করল। (বাংলা লিখতে সে পছন্দ করে না। অনেক সময় নিয়ে ক খ লিখা শিখাচ্ছি।)
ক-ঙ এক সপ্তাহে লিখলে আরো দুই সপ্তাহ পর চ ছ লিখে, এমন অবস্থা। আর লিখতে গেলে ঘুম আসে, নানা রকম ঘটনা, গল্প মনে আসে। তাই দুটি বর্ণ শিখতে দুই সপ্তাহ লেগে যায়।
যাক , কি আর করা….

লিখতে বসে বর্ণের সাথে শব্দ মিলাচ্ছে।
মা…. ক তে কই। ব তে বই…..

ঠিক আছে, আগে আমরা লিখা শেষ করি। পরে শব্দ মিলাবো…..

মাম্মাম….. ত তে তন্তান…..
কী????
ত তে তন্তান….
কি দিয়ে কী??🤔🤔
সন্তান??? 😅😅😅
ওরে পাগলা, স তে সন্তান 😄😄

আমিতো তেতাই বলছি, ত তে তন্তান
😂😂🤣🤣

ত বর্গীয় তন্তান কিছু দিন হোল সাহস, পাহাড়, মহান বলতে শিখেছে।

তার ভাষা ছিল– আমার অনেক সাগস। তাই আমরা পাগাড়ে বেড়াতে যাবো।
আল্লাহ মগান, আল্লাহ মগান ইত্যাদি।

এদিকে লু আর লেলো কালার তার খুব পছন্দ।

আশা করছি সাড়ে চার বছর বয়সী পুত্রের এসব মিষ্টি মধুর বাণী খুব দ্রুত ঠিক হয়ে যাবে।

রমজানের শেষ দশ দিন চলে আসলো। দোয়া চাই সবার কাছে। কারো মনে কষ্ট দিয়ে থাকলে মাফ করে দিবেন। সবাই সবার জন্য দোয়া করবেন। ঈমানের সাথে বেঁচে থাকার জন্য দোয়া করবেন। উম্মাহর ঐক্য এবং শান্তির জন্য দোয়া করবেন। আল্লাহ আমাদের সকলের গুনাহ মাফ করুক, সবার নেক দোয়া কবুল করুক।
আমিন।