Categories
যাপিত জীবন

আমার ডায়েট

ভোজন রসিক আমার সব ধরনের খাবার খেতে বেশ ভালো লাগে। খুব বেশি লবণ না হলে যে কোনো রান্না খেতে পারি। শুটকি, ভর্তা, ঝাল এই টাইপের খাবার হলে খাওয়া অনেক বেশি হয়ে যায়।ফলাফল শরীরের ওজন আদর্শ ওজনের চাইতে প্রায় ১০/১৫ কেজি বেশি। তিন বাচ্চার সময়কার ফ্যাট খুব একটা কমেনি। মাঝে মাঝে ডায়েট প্ল্যান নেই। কিন্তু খুব একটা ফলো করা হয় না। গুলুমুলু আমি খাবার একটু কম খেলে আম্মুর কষ্ট হয়, ভদ্রলোকের ও খারাপ লাগে।

স্ট্রিক্টলি ডায়েট করার চেষ্টায় ভাত কম রান্না করি মাঝে মাঝে। বাচ্চাদের খাওয়ানোর পর আমরা দুজন মিলে একবার খেতে পারব। ওভাবেই অল্প পরিমাণ রান্না করেছি। দ্বিতীয় বার যাতে আর ভাত নিতে না পারি।

দুঃখের বিষয় হল এরকম করলে মাঝরাতে খিদা লাগে। বিছানায় বসে মশারির ভেতরে খিদায় কুই কুই করতে থাকি। ভদ্রলোক তখন হাতের কাজ ফেলে একেকদিন একেকটা খাবার রেডি করে নিয়ে আসে। তার মতে, খেয়ে দেয়ে আরো গুলুমুলু হও!!! তবু সুস্থ থাকো।

আমার আর ডায়েট করা হয় না। 🙄