Categories
অভিজ্ঞতা

সলিড টিপস#৬


বাচ্চারা যখন সলিড শুরু করে তখন তাদের খাবারগুলো খুবই নরম হওয়া উচিত। খাবার যদি অল্প একটু দানা ভাব থাকে তাতেও তারা গিলতে পারে না , বমি করে দেয়। তাই অনেকেই সলিড শুরু করার সময় বাচ্চাদের খাবার গুলো ব্লেন্ড করে দেয়। এতে আবার বাচ্চাদের চিবিয়ে খাওয়ার অভ্যাস টা কমে যায়। সে ক্ষেত্রে অনেক বাচ্চা তিন চার বছর ধরে চিবিয়ে খেতে চায় না, যদি ব্লেন্ড করা খাবারে অভ্যস্ত হয়ে যায়।
তাই বাচ্চাদেরকে সলিড শুরু করার সময় যদি পর্যাপ্ত পরিমাণে খাবার বেশি পানি দিয়ে নরম করে সিদ্ধ করা হয় এবং ডাল ঘুটনি দিয়ে ভালো করে ঘুটে দেওয়া হয় তবে খাবার বেশ ভালই নরম হয়, দানা ভাব ও থাকে না। এই খাবার বাচ্চার গিলতে অসুবিধা হয় না । এছাড়া খাবার ব্লেন্ড করলে আরেকটা সমস্যা যেটা হয় ব্লেন্ডারে খাবারের পরিমাণ একটু বেশি করে দিতে হয়। নতুবা ব্লেন্ড করা যায় না। অথচ সলিড শুরু করা বাচ্চার খাবারের পরিমান খুব অল্প হয়। যদি প্রতিদিনের টা প্রতিদিন রান্না করা হয় সে ক্ষেত্রে দেখা যায় ব্লেন্ড করা খাবার বেশি পরিমাণে করতে হয় এবং দিনের টা খেয়ে বাকিটা আবার ফেলে দিতে হয়। অথবা দু’চার দিন বাসি করে খাওয়ানো লাগে । কিন্তু খাবার যদি ঘুটনি দিয়ে ছোট পাতিলে রান্না করা হয়, তাহলে খুব অল্প পরিমাণে প্রতিদিনের খাবার প্রতিদিন রান্না করা যায় । আর যেহেতু এই সময় বাচ্চাদের একটা বমির অভ্যাস তৈরি হয়, তাই খাবার খাওয়ানোর সময় খুব সাবধানে খাওয়ানো উচিত।
বাচ্চার যদি বমি প্রবণতা বেশি থাকে সেক্ষেত্রে খাবার দেয়া বন্ধ করা উচিত। প্রয়োজন হলে কিছুক্ষণ পরপর খাবার খাওয়ানোর চেষ্টা করা যায় ।
বাচ্চারা বেশকিছু কারণে বমি করতে পারে। একটা হল পেট ভরে গেছে, পেটে আর জায়গা নাই। আরেকটা হতে পারে গলায় মুরগির পাতলা হাড় অথবা মাছের কাঁটা আটকে গেছে। অথবা বাচ্চা খুব বিরক্ত খেতে চাইছে না। তাই জোর করলে বমি করবে।

সলিড শুরু করা বাচ্চাদের ক্ষেত্রে এই ব্যাপারগুলা একটু খেয়াল করলে বাচ্চার মায়েদের কষ্ট একটু কম হতে পারে।